ইতালি ও ইউরোপের প্রবাসীদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ টিপস। অরিজিনাল এবং নকল Samsung Galaxy S4 কিভাবে চিনবেন??

by Lesar on জানুয়ারী ২২, ২০১৪পোস্ট টি ১,০১৪ বার পড়া হয়েছে in সকল মোবাইল

বর্তমান সময়ের স্মার্টফোন নিয়ে কিছু বলতে গেলেই প্রথমে আসে Samsung এর কথা। কারন  Samsung  এর গেলাক্সি সিরিজ এর ডিভাইস গুলো স্মার্টফোন পরিবারে যোগ করেছে ভিন্ন এক মাত্রা। বিশ্বব্যাপী  Samsung  মোবাইল এর সেল হচ্ছে অধিক হারে। আর এই সুযোগ টা নিয়ে কিছু লোকাল কোম্পানি ক্লোন এবং রেপ্লিকা বানাচ্ছে  Samsung  এর। এবং খুব মজার ব্যাপার হচ্ছে আমরা অনেকে সেই ক্লোন ডিভাইস গুলোই কিনতেছি অরিজিনাল ডিভাইস এর দামে। কিনবেন না ই বা কেন!! আপনি তো জানেনই না কোনটা আসল কোনটা নকল!! কারন অরিজিনাল এবং ক্লোন এর মধ্যে নরমাল চোখে আপনি কোন পার্থক্য খুজে পাবেন না এমনকি মোবাইল এর সফটওয়্যার এর মধ্যেও। তবে পার্থক্য অবশ্যই আছে। আর সেগুলই আজ দেখাবো আমরা… আজকের এই পর্বে দেখাবো কিভাবে আপনি Original কিংবা Clone Samsung Galaxy S4 চিনবেন। যদিও এটা স্পেশিয়ালি এস৪ এর জন্যে লিখা তবে এই পদ্ধতিতে প্রায় সকল স্যামসাঙ গেলাক্সি সিরিজ এর ডিভাইসই চিনতে পারবেন। তো চলুন শুরু করা যাক…তবে শুরু করার আগে একটি কথা বলে রাখা ভালো। তা হোল বর্তমানে ইতালি ও ইউরোপে স্যামসাঙ এর এই নকল চাইনিজ ফোন গুলো দিয়ে কিন্তু  ভরে গেছে। তাই অনেকে আপনাদের কাছে কম দাবে বা বিষের অফার দিয়ে বিক্রয় করতে চাইবে। তাই আপনারা বেশি দাম দিয়ে সেই সব নকল ফোন কেনার আগে অবশ্যই আমাদের এই পোস্টটি ভাল করে লক্ষ করে তারপর ক্রয় করবেন। উল্লেক্ষ ইতালি ও ইউরোপে অনেক বাঙ্গালী দোকানও রয়েছে জারা আপনাকে বিশেষ অফার এর কথা বলে বেশি দামে এইসব নকল ফোন ধরিয়ে দিচ্ছে  কাজেই প্রবাসে আপনার কষ্টের উপার্জিত টাকা দিয়ে যখন একটি জিনিস ক্রয় করবেন, কিনার আগে অবশ্যই যাচাই করে নিবেন। আর আপনাদেরকে এসব জিনিস যাচাই করার ক্ষেত্রে সাহায্য করার জন্য রয়েছে আমিওপারি… আমাদের সাহায্যে নকল প্রতিহত করে অরিজিনাল ডিভাইস ক্রয় করুন এবন সবাইকে জানিয়ে দিন যে, এখন আমিওপারি যাচাই করে নকল মোবাইল সনাক্ত করতে…  তাহলে চলুন শুরু করা যাক…      

Physical differences:  ক্লোন এবং নকল ভার্সন এর এস৪ আপনি নরমালভাবে দেখলে দেখবেন সম্পূর্ণ একই রকম। তবে যদি একটু ভালো করে খেয়াল করে দেখেন তাহলে পার্থক্য পাবেন। তবে যদি আসলটি নাই দেখেন তাহলে পার্থক্য পাবেন ক্যামনে! তাই নিচের ছবিতে দেখতে পারেন। ভালো করে তাকিয়ে দেখুন এটি একটি নকল গেলাক্সি এস৪ গেলাক্সি এস৪ ডিভাইসটি 5-inch ডিসপ্লে নিয়ে গঠিত। নিচের ছবিতে এটাও ৫ইঞ্চি। তবে খেয়াল করে দেখুন স্ক্রিন এর চারপাশে একটু কালো রকমের লেয়ার দেখা যাচ্ছে যা অরিজিনাল এ থাকবে না। এছারাও স্ক্রিন এর দু পাশে যতটা সাদা যায়গা বাকি থাকছে এটা অরিজিনাল এ থাকবে তবে খুব ই পাতলা এবং চিকন করে থাকবে। তার মানে ডিসপ্লে সাইজ ৫ ইঞ্চি হলেও স্ক্রিন কিন্তু ৫ ইঞ্চি না! অরিজিনাল এ আপনি এক্সাক্টলি ৫ইঞ্চি স্ক্রিনই পাবেন।

এবার আসি আরেকটি হার্ডওয়্যার এ । হোম বাটন টি খেয়াল করে দেখুন কোথায় আছে! অরিজিনাল ভার্সন এ হোম বাটন টি স্ক্রিন এর নিচে খুব কাছাকাছি থাকবে। কিন্তু নকল ভার্সন এ দেখবেন একটু নিচে আছে যা নরমালি বুঝা যাবেনা তবে খেয়াল করলেই পাবেন পার্থক্য টা দেখতে।এবার আসি উপরে যে Samsung Logo দেখতে পাচ্ছেন সেখানেও খুত আছে। অরিজিনাল Samsung এর প্রিন্ট করা লোগো টি দেখতে এমন হবেনা এস৪ এ। আর যদি হয়ও তাহলে দেখবেন যে স্ক্রেচ করলে লোগো টা অনেকটা উঠে যাচ্ছে কিংবা কেমন ঘোলা হয়ে যাচ্ছে। যেমন নিচের ছবিতে দেখুন স্ক্রেচ করে লোগো উথিয়ে ফেলা হয়েছে যা অরিজিনাল এস৪ এ আপনি পারবেন না তবে দা কাচি কিংবা ছুরি দিয়ে স্ক্রেচ করলে তো অবশ্যই পারবেন!

এবার আসি আরেকটা পয়েন্ট এ । ডিভাইস প্যাক এবং বক্স এ। এস৪ এর নকল ভার্সন এর বক্স অরিজিনাল এর মতই দেখতে হবে তবে…
তবে কিছু ভিন্নতা দেখতে পাবেন বক্স খুলেই। আপনি মাঝে মাঝে দেখতে পেতে পারেন বক্স এর ভিতর ফ্রি তে একটি ফ্লিপ কাভার থাকছে আপনার জন্যে। মনে রাখবেন স্যামসাঙ কানলেও আপনাকে এই ফ্লিপ কাভার ফ্রি তে দিবে না প্যাক এর ভিতর। কারন একটি কাভার তারা ১-২ হাজার টাকা সেল করে। তারপর এমনও দেখতে পারেন যে দুইটি ব্যাটারি দিচ্ছে । মানে একটি এক্সট্রা ফ্রি তে দিচ্ছে। আপনিই বলুন স্যামসাঙ এর কি ঠ্যাকা লাগছে একটা এক্সট্রা ব্যাটারি আপনাকে দিতে যেখানে ওরা একটা ব্যাটারি কয়েক হাজার টাকা সেল করে! এছাড়াও এমনও দেখতে পারেন যে স্যামসাঙ ব্র্যান্ড এর ইউএসবি কার্ড রিডার থাকছে। এটাও কিন্তু অরিজিনাল বক্স এ থাকেনা। এই তিনটি যদি পেয়ে থাকেন তাহলে চোখ বন্ধ করে কনফার্ম হন যে এই ডিভাইস টি নকল।

Software quirks: এবার আসি সফটওয়্যার দিয়ে কিভাবে বুঝবেন আসল না নকল? সফটওয়্যার প্রায় একই হবে। সম্পূর্ণ কপি হবে তবুও কিছু পয়েন্ট আছে যা দিয়ে বুঝতে পারবেন আসল না নকল!

মনে রাখবেন Original Samsung S4 এ Android Firmware Version থাকবে Android Jellybean 4.2.2 . এটায় এছারাও থাকবে Samsung এর কাস্টম UI মানে ইউজার ইন্টারফেস TouchWiz। এবার উপরের ছবিতে খেয়াল করে দেখুন সবই ঠিক আছে। ইউজার ইন্টারফেস TouchWiz ই আছে। ভার্সন 4.2.2 ই লিখা আছে। তবে? এটা নকল ক্যামনে বুঝবো? খেয়াল করে দেখুন Build Number  এ কি লিখা? এই হল একটা পয়েন্ট যেখান থেকে বুঝতে পারবেন এটি নকল। আর এটি চলছে  4.2.2 ভার্সন এ লিখা আছে তবে সেটা যে জেলিবিন সেটা ডিভাইস এর কোথাও লিখা আছে? এবং একটু ইউজ করেই বুঝতে পারবেন এই ভার্সনটি জেলিবিন এর ধারে কাছেও নাই!

এবার আসি LCD টেস্ট এ। আপনার মোবাইলটি হাতে নিয়ে  *#0*# এই কোড টি চাপুন। তাহলে নিচের মতো আসবে

যদি এটা নকল হয় তাহলে এটা আসবে না। তবে মজার ব্যাপার হল চাইনিজ এর মাথা তো!! এটাও আসবে অনেক সেট এ । তবে এটার সব ফাংশান কাজ করবে না সবগুলো। তাই আমি সাজেস্ট করবো সবগুলো অপশন চেক করে দেখুন যদি কাজ না করে তাহলেই বুঝে জাবেন এটি নকল। মনে রাখবেন… স্যামসাঙ এর অরিজিনাল ডিভাইস এ সব ফাংশান কাজ করবে।

এবার আসি আরো কিছু কোডিং এ… নিচের কোড গুলো ট্রাই করুন
*#1234# (View SW Version PDA, CSC, MODEM)
*#0*# (General Test Mode)
*#12580369# (SW & HW Info)
*#197328640# (Service Mode)
*#0228# (ADC Reading)
*#32489# (Ciphering Info)
*#232337# (Bluetooth Address)
*#232331# (Bluetooth Test Mode)
যদি কোড গুলো কাজ না করে তাহলে এটি মাস্ট নকল ভার্সন কারন অরিজিনাল স্যামসাঙ এ সব গুলো কোড কাজ করবে।এবার আসি ডিসপ্লে টাইপ টেস্ট এ। অরিজিনাল এস৪ থাকছে সুপার এমোলেড স্ক্রিন। এই পরিক্ষায় আপনাকে এমোলেড স্ক্রিন সম্পর্কে ধারনা থাকতে হবে। তবুও নিচের ছবিতে দেখুন
দেখতেই দেখা যাচ্ছে এটি নকল এবং তা এমোলেড কালার দিচ্ছে না বরং এটি TFT LCD কিংবা IPS LCD ডিসপ্লে। সুতরাং এ থেকেও বুঝতে পারছেন এটি নকল।
এবার আসি আরেকটি টেস্ট এ। এখন আমি দেখাবো micro USB Jig টেস্ট। আপনি আপনার ডিভাইস এ micro USB Jig টি কানেক্ট করুন। অরিজিনাল ডিভাইস এ এটি কানেক্ত করলে  Downloading Mood  এ যাবে। যেমনটি নিচের ছবিতে আছে যদিও এটি এস৪ না তবে এস৪ এ সেইম হবে।

যদি কানেক্ট করার পর Downloading Mood এ না যায় তাহলে কনফার্ম হয়ে যান যে এটা নকল। অনেকে প্রশ্ন করতে পারবেন এই জিগ জিনিসটা কি? অনেকে এটার ব্যাপারে জেনে থাকবেন। আমি এখন এটি নিয়ে কিছু বলতে জাচ্ছিনা কারন সে এক বিশাল পোস্ট লিখা থাকবে তার জন্যে তবে পরে আমি আলাদা করে দেখিয়ে দিবো পোস্ট এ।
এবার চলুন দেখি আরেকটি টেস্ট …
নিচের ছবিতে খেয়াল করে দেখুন অরিজিনাল এবং নকল এর পার্থক্য।

আপনাদের জন্য এখানে একটি ভিডিও দিয়ে দেওয়া হলে যেটা দেখলে আরো ভাল করে অনেকটা বুঝতে পারবেন। যাই হোক আশা করি এই পোস্টটি আপনাদের অনেক উপকারে আসবে। এরকম আরো মজার মজার তথ্য পেতে আমাদের সাথেই থাকুন আমাদের পরিবারের একজন সদস্য হয়ে।


[[ আপনি জানেন কি? আমাদের সাইটে আপনিও পারবেন আপনার নিজের লেখা জমা দেওয়ার মাধ্যমে আপনার বা আপনার এলাকার খবর তুলে ধরতে এই লেখায় ক্লিক করে জানুন এবং  তুলে ধরুন। নিজে জানুন এবং অন্যকে জানান। আর আমাদের ফেসবুক ফ্যানপেজে রয়েছে অনেক মজার মজার সব ভিডিও সহ আরো অনেক মজার মজার টিপস তাই এগুলো থেকে বঞ্চিত হতে না চাইলে এক্ষনি আমাদের ফেসবুক ফ্যানপেজে লাইক দিয়ে আসুন। এবং আপনি এখন থেকে প্রবাস জীবনে আমাদের সাইটের মাধ্যমে আপনার যেকোনো বেক্তিগত জিনিসের ক্রয়/বিক্রয় সহ সকল ধরনের বিজ্ঞাপন ফ্রিতে দিতে পাড়বেন। ]]

InstaForex *****লেখাটি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুণ!*****

সম্পর্কিত আরো কিছু পোস্ট দেখতে পারেন...

এই লেখাটি লিখেছেন...

– সে এই পর্যন্ত 1176 টি পোস্ট লিখেছেন এই সাইট এর জন্য আমিওপারি ডট কম.

আমিওপারি নিয়ে আপনাদের সেবায় নিয়োজিত একজন সাধারণ মানুষ। যদি কোন বিশেষ প্রয়োজন হয় তাহলে আমাকে ফেসবুকে পাবেন এই লিঙ্কে https://www.facebook.com/lesar.hm

লেখকের সাথে যোগাযোগ করুন !

আপনার মন্তব্য লিখুন

{ 0 comments… add one now }

Leave a Comment