অভিবাসীদের জন্য নতুন স্বর্গ – জার্মানি! দিন দিন বেড়েই চলছে জার্মানিতে অভিবাসীদের সংখ্যা!

by experience on জুন ২৮, ২০১৪পোস্ট টি ১,০৩২ বার পড়া হয়েছে in ইউরোপের সংবাদ

ঠিক স্বর্গ নয়, কিন্তু উপস্বর্গ বলা চলে, কেননা স্বর্গ বলতে আজও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র৷ তবে ওইসিডি-র রিপোর্ট অনুযায়ী, ২০১২ সালে জার্মানি ছিল ঈপ্সিত দেশ হিসেবে দ্বিতীয়৷ সে’বছর জার্মানিতে পাড়ি জমান চার লাখ অভিবাসী৷

অর্থনৈতিক সহযোগিতা ও উন্নয়ন সংগঠন ওইসিডি-র বিবরণে অভিবাসনের ক্ষেত্রে জার্মানি ওইসিডি-র ৩৪টি দেশের মধ্যে দ্বিতীয় স্থানে৷ ২০১২ সালে জার্মানিতে যে সব অভিবাসীদের আগমন ঘটে, তাঁদের অধিকাংশ আসেন রোমানিয়া, বুলগেরিয়া এবং পোল্যান্ড থেকে৷ এছাড়া কিছু মানুষ আসেন দক্ষিণ ইউরোপের সংকট-পীড়িত দেশগুলি থেকে৷অভিবাসনের ধারা যে কোনদিকে বইবে, তা আগে থেকে বলা শক্ত এবং তার নানা কারণ থাকতে পারে৷ ব্রিটেনে ২০১২ সালে তিন লাখ অভিবাসী নথিভুক্ত করা হয়েছে: এই সংখ্যা ২০০৩ সাল যাবৎ নিম্নতম৷ স্পেন আর ইটালিতেও অভিবাসীদের আগমনের সংখ্যা কমেছে লক্ষণীয়ভাবে: ২০১১ সালের তুলনায় যথাক্রমে ২২ ও ১৯ শতাংশ৷

ইইউ-বহির্ভূত দেশগুলি থেকে অভিবাসীদের আগমন ২০০৮ সালের বিশ্বব্যাপী আর্থিক সংকট যাবৎ কমেই চলেছে৷ অপরদিকে এই নতুন অভিবাসীদের আগমনের ফলে সরকারি তহবিলের উপর বিশেষ চাপ পড়েনি৷ অভিবাসীদের শিক্ষাদীক্ষাও মন্দ নয়, বলে জানিয়েছে ওইসিডি৷

এ সব সত্ত্বেও ইউরোপ জুড়ে অভিবাসন-বিরোধী দলগুলি সীমান্তে নিয়ন্ত্রণ বর্ধিত করার ডাক দিয়ে চলেছে৷ এক্ষেত্রে বিভিন্ন দেশের দক্ষিণপন্থিদের ধারণা আলাদা৷ নেদারল্যান্ডসে গের্ট উইল্ডার্স-এর স্বাধীনতা দল মুসলিম দেশগুলি থেকে অভিবাসন বন্ধ করার ডাক দিয়েছে৷ ফ্রান্সের উগ্র দক্ষিণপন্থি ন্যাশনাল ফন্ট দল নতুন অভিবাসীদের সংখ্যা দশ হাজারে সীমিত রাখতে চায়৷ জার্মানির ক্ষেত্রে তার শিল্প-অর্থনীতি এবং জনসংখ্যাগত কারণে অভিবাসন অপরিহার্য: এখন যে সেই অভিবাসীরা অধিতকতর পেশাগত দক্ষতা নিয়ে আসছেন এবং আরো তাড়াতাড়ি কাজ পাচ্ছেন, তা-তে স্বভাবতই অভিবাসনের পরিমাণ এক বছরে – ২০১১ থেকে ২০১২ সালের মধ্যে – ৩৮ শতাংশ বাড়া সত্ত্বেও জার্মানিতে কাউকে বিশেষ চিন্তিত দেখা যাচ্ছে না৷ এবং অন্যান্য ইউরোপের দেশ গুলোর তুলনায় বর্তমানে জার্মানিতে প্রচুর অভিবাসী আগমন ঘটেই চলেছে। এভাবে চলতে থাকলে ২০১৫ এর শেষের দিকে এর সংখ্যা ৪১ শতাংশ গিয়ে পৌছবে।

InstaForex *****লেখাটি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুণ!*****

সম্পর্কিত আরো কিছু পোস্ট দেখতে পারেন...

ফ্রান্স-এ মেলার নামে আদম পাচার বাণিজ্য ! (পর্ব-০১)
সুইজারল্যান্ডে রাজনৈতিক আশ্রয় নেওয়ার নিয়ম আরো কঠোর করা হলো
সুইজারল্যান্ডের জেনেভায় অনুষ্ঠিত হলো ঈদ পুনর্মিলনী ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।
৬ মাস ধরে টিভি চলছে মৃত নারীর সামনে
গ্রীসের দালাল সিন্ডিকেটের কাছে বাংলাদেশ সরকারের নৈতিক পরাজয়!
জাহাজ নির্মাণ শিল্পে পোল্যান্ড-বাংলাদেশ অপার সম্ভাবনা

এই লেখাটি লিখেছেন...

– সে এই পর্যন্ত 95 টি পোস্ট লিখেছেন এই সাইট এর জন্য আমিওপারি ডট কম.

লেখকের সাথে যোগাযোগ করুন !

আপনার মন্তব্য লিখুন

{ 0 comments… add one now }

Leave a Comment