১লা জুলাই থেকে সুইডেনে শ্রমিকদের দৈনিক কাজ করতে হবে মাত্র ৬ ঘণ্টা!

by Lesar on জুলাই ৫, ২০১৪পোস্ট টি ৮৫০ বার পড়া হয়েছে in ইউরোপের সংবাদ

কর্মস্থলে শ্রমিকদের কর্মঘণ্টা ভিন্ন দেশে ভিন্ন রকম হয়ে থাকে। যেমন বাংলাদেশের গার্মেন্টস শিল্পে শ্রমিকদের দৈনিক কাজ করতে হয় ১২ ঘণ্টারও অধিক এবং ক্ষেত্র বিশেষে অনেককে ১৮ ঘণ্টা পর্যন্ত কাজ করতে শোনা যায়।[sociallocker]এদিকে, সুইডেনের দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর গোথেনবর্গ শহরে এ গ্রীষ্ম থেকে পরীক্ষামূলকভাবে মাত্র ৬ কর্মঘণ্টা শুরু করা হয়েছে। বলা হচ্ছে, এতে কাজে অধিক মনযোগস্থাপন সহ কর্ম সম্পদানে অধিক দক্ষতা অর্জনে সক্ষম হবে জানিয়েছে ওয়াশিংটন পোস্ট।এ মাসের ১লা জুলাই থেকে গোথেনবর্গের কিছু সরকারী কর্মচারীদের উপর পরীক্ষামূলকভাবে পরিচালিত দৈনিক ৬ কর্ম ঘণ্টা প্রজেক্ট যদি সফলতার মুখ দেখে তাহলে সুইডেনের অন্যান্য ক্ষেত্রেও দৈনিক ৬ কর্মঘণ্টা চালু করবে সুইডেন।তবে নিদিষ্ট উক্ত গ্রুপ ছাড়া বাকী সবাইকে ৮ ঘণ্টা কাজ করে যেতে হবে।

বলা হচ্ছে আপনি যত কম কাজ করবেন কর্মক্ষেত্রে আপনি তত বেশি দক্ষতার স্বাক্ষর রাখতে সক্ষম হবেন। এদিকে, দৈনিক মাত্র ৬ ঘণ্টা করে কাজ করার ফলে সুইডেনের বর্তমান কর্ম দিবস ২৬০ দিল (সকল সরকারী ছুটির দিন গণনা করা সাপেক্ষে) থেকে হ্রাস পেয়ে ২২২ দিনে নেমে আসবে এবং বছরে ৮৭৬০ ঘণ্টার মধ্যে কাজ করতে হবে মাত্র ১৩৩২ ঘণ্টা!

এদিকে অনেক প্রবাসী ভাই রয়েছেন যারা ইতালিতে ১৪ ঘণ্টা টানা কাজ করে থাকেন, এবং তারা এই ত্যাগ স্বীকার করেন  সম্পূর্ণ তার পরিবারের দিকে তাকিয়ে, এবং কখনো তার পরিবারকে জানতেও দেয়না তার এই ত্যাগ সম্পর্কে!! কাজেই আপনাদের যারা প্রবাসে রয়েছে তাদের প্রতি সহনভুতিশীল আচরণ করুণ।  [/sociallocker]

*****লেখাটি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুণ!*****

সম্পর্কিত আরো কিছু পোস্ট দেখতে পারেন...

বেকারত্বে রেকর্ড ইউরোপের দেশগুলোতে!
জার্মানির হামবুর্গ বন্দরে কিভাবে মাদক সনাক্ত করা হয় তা নিয়ে দেখুন একটি ভিডিও প্রতিবেদন।
ভূ-স্বর্গ সুইজারল্যান্ডের জুরিখে মহাড়ম্বরে বৈশাখী মেলা-১৪২১ উৎযাপন
ইউরোপের অবৈধ অভিবাসীদের কারাগারে রাখা যাবে না!
বাংলাদেশ এবং ফিনল্যাণ্ড এর সাংস্কৃতিক পার্থক্য !!!
রোহিঙ্গা ইস্যুতে মিয়ানমারের ওপর আন্তর্জাতিক চাপ বাড়াবে আয়েবা

এই লেখাটি লিখেছেন...

– সে এই পর্যন্ত 1158 টি পোস্ট লিখেছেন এই সাইট এর জন্য আমিওপারি ডট কম.

আমিওপারি নিয়ে আপনাদের সেবায় নিয়োজিত একজন সাধারণ মানুষ। যদি কোন বিশেষ প্রয়োজন হয় তাহলে আমাকে ফেসবুকে পাবেন এই লিঙ্কে https://www.facebook.com/lesar.hm

লেখকের সাথে যোগাযোগ করুন !

আপনার মন্তব্য লিখুন

{ 0 comments… add one now }

Leave a Comment