স্তন ক্যান্সার কি? ইতালি ও ইউরোপে কিভাবে ফ্রী স্তন ক্যান্সার সনাক্ত করন পরীক্ষা করাবেন?

by tahmina yasmin shoshi on আগস্ট ৯, ২০১৪পোস্ট টি ৬৫০ বার পড়া হয়েছে in ইতালিতে চিকিৎসা সম্পর্কিত

তাহমিনা ইয়াসমিন শশী- ভেনিস, ইতালি থেকেঃ

স্তন ক্যান্সার কি?
স্তনের কিছু কোষ বিশেষ যখন অস্বাভাবিকভাবে বৃদ্ধি পায় তখন স্তনে ক্যান্সার হতে পারে। অধিকাংশ মহিলাদের জন্য এই রোগ একটি আতঙ্কের কারন।
স্তন ক্যান্সার কেন হয়?
এই রোগ কেন হয় এর কোনও সুনির্দিষ্ট কারন এখনও জানা যায়নি। তবে এর দুটি রিস্ক ফ্যাক্টর রয়েছে। যেমন সেক্স এবং এইজ।

স্তন ক্যান্সারের লক্ষণ কি?
স্তনের কোনও অংশ চাকা চাকা হয়ে যাওয়া। স্তনের আকার বা আকৃতির অস্বাভাবিক পরিবর্তন। স্তনবৃন্তের আকারে পরিবর্তন। স্তনবৃন্ত থেকে অকারনে তরল পদার্থ বের হওয়া। স্তনবৃন্তের আশেপাশে রাশ বা ফুসকুড়ি দেখা দেয়া। স্তনের ভেতরে গোটা ওঠা বা শক্ত হয়ে যাওয়া। বাহুস্থলের বা (বগলের নিচে) গ্লান্ড (লিম্ফনোড) বড় সড়ো হয়ে যাওয়া। নিপল ডিসচার্জ এবং স্তনের বোটা ভেতরে ঢুকে যাওয়া, ইত্যাদী।

কারা স্তন ক্যান্সার হওয়ার ঝুকিতে থাকেন?
পুরুষের চেয়ে মহিলাদের এ রোগ হওয়ার সম্ভাবনা বেশী। ৪০-৫০ বছরের উর্দ্ধে মহিলাদের এ রোগ হওয়ার সম্ভাবনা বেশী থাকে। মা, বোন, খালা, নানী, দাদী, ফুপুদের স্তন ক্যান্সার থাকলেও এতে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভবনা থাকে। জীনগত কারনেও হতে পারে। সূর্যের অতিরিক্ত নীল রশ্মির বিচ্ছুরন থেকে হতে পারে। ওবিসিটি বা মুটিয়ে গেলে হতে পারে। খাওয়া দাওয়ার সাথে ব্রেস্ট ক্যান্সারের একটি ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক রয়েছে। বেশী মশলাদার, ভাজাপোড়া বা চর্বিজাতীয় খাবার অতি পরিমানে খেলে এ রোগ হতে পারে। যারা দীর্ঘদিন ধুমপান করেন, মদ্যপান করেন তাদেরও স্তন ক্যান্সার হওয়ার ঝুকি থাকে। প্রলিফারেটিভ অ্যাপটিকেল হাইপারল্লেলিয়া থাকলে ব্রেস্ট ক্যান্সারের ঝুঁকি বেড়ে যায় চারগুন বেশী। মেনোপজের পর অর্থাৎ (মাসিক বন্ধ হয়ে গেলে) হরমোন রিপ্লেসমেন্ট থেরাপি দীর্ঘদিন ব্যাবহার করলে হতে পারে। ইনকমপ্লিট প্রেগন্যান্সি বা অ্যাবরশন করলে হতে পারে। বেশী বয়সে বাচ্চা নিলেও এই ঘাতক রোগ হতে পারে।

এই রোগটি এড়ানোর উপায় কি?
যেহেতু এ রোগটির নির্দিষ্ট কোনও কারন এখনো জানা যায়নি, তাই এই রোগ এড়ানোর জন্য নির্দিষ্ট কোনো উপায় বলা যাবে না। তবে কিছু বিষয় মেনে চলার পরামর্শ দেয়া যেতে পারে। যে বেশ ফলদায়ক।
২০ বছর বয়স থেকে নিজে নিজে ব্রেস্ট পরীক্ষা করুন। ৩০ বছর বয়সের মধ্যে ১ম সন্তান জন্ম দেয়ার চেষ্টা করুন। সন্তানকে বুকের দুধ পান করান। খাবার দাবারের ক্ষেত্রে চর্বিযুক্ত খাবার পরিহার করুন। ফলমূল এবং সবজি বেশী খাওয়ার অভ্যাস করুন। ভিটামিন ‘এ’ এবং ‘সি’ জাতীয় ফলমূল বেশী খাওয়ার চেষ্টা করুন। যেসব খাবারে বিটা ক্যারোটিন রয়েছে, যেমন গাজর, মিষ্টি আলু এবং সবুজ শাক বেশি বেশি খাওয়ার অভ্যাস করুন। নিয়মিত ব্যায়াম করুন। যাদের ওজন বেশী অবশ্যই তাদের ওজন কমাতে হবে। মানুসিক চাপ থাকলে সাইকোথেরাপিস্টের পরামর্শ নিন। ধর্মীয় অনুশীলন মেনে চলুন। জীবনযাত্রায় নৈতিকতা এবং শৃংঙ্খলা বজায় রাখুন। ধূমপান ও এ্যালকোহল পরিহার করুন। রিস্ক ফ্যাক্টর থাকলে মেমোগ্রাফি করুন। সন্দেহ থাকলে ক্যান্সার সার্জনের শরনাপন্ন হন।

কি ধরনের পরীক্ষা-নিরীক্ষার প্রয়োজন হতে পারে?
ম্যা্েমাগ্রাম (Mammogram), ব্রেস্ট আলট্রাসাউন্ড  (Breast ultrasound), ব্রেস্ট ম্যাগনেটিক রিজোন্যান্স ইমাজিং (Breast magneti resonance imaging), বায়োপসি (biopsy),  রক্তের পরীক্ষা।  কম্পিউটারইজড টমোগ্রাফী স্ক্যান (computerized tomography or ct scan)। পজিট্রন ইমিশন টমোগ্রাফী স্ক্যান (positron emission tomography or pet scan) ইত্যাদী।

কি ধরনের চিকিৎসা রয়েছে?
কেমোথেরাপি, হরমোন থেরাপি অথবা রশ্মি থেরাপি।

কি ধরনের অপারেশন করা হয়?
ল্যাম্পপেকটমি  (lympectomy),  ম্যাসটেকনমি (mastecnomy),  সেন্টিনাল নোড বায়োপসি (sentinel node biopsy)।  এবং অক্রিলারি লিম্ফ নোড ডিসেকশন (axillary lymph node dissection)।
এক সময় বলা হতো ক্যান্সার এর নাই কোনো অ্যান্সার। এখন আর এ কথার কোনও ভিত্তি নেই। একটু সচেতন হলেই সুস্থ থাকা যায়। নিজের স্তন নিজে পরীক্ষা করুন। স্তন ক্যান্সার প্রাথমিক পর্যায়ে নির্ণয়ের জন্য একটি অত্যন্ত কার্যকরী পদ্ধতি হলো নিয়মিত নিজের স্তন নিজে পরীক্ষা করা। যাকে বলা হয়  (BSE- BREAST SELF EXAMINATION)।  প্রতিটি মেয়ে কিংবা নারী যদি প্রতি মাসে অন্তত একবার নিজের স্তন নিজে পরীক্ষা করেন তাহলে নিজের সমস্যা নিজেই ধরতে পারবেন। সাধারনত মাসিক শেষ হওয়ার পর একটি নির্দিষ্ট দিনে এই পরীক্ষা করতে হবে এবং একই সময়ে এর ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে হবে। অন্তত ২০ বছর বয়স থেকে সকল মেয়েকেই নিজ স্তন নিজেই পরীক্ষায় অভ্যস্ত হওয়া দরকার।

কিভাবে স্তন পরীক্ষা করবেন?
আয়নার সামনে দাড়ার। উধ্বাঙ্গ হন। ঘরে যেন পর্যাপ্ত আলো থাকে। প্রথমে ব্রেস্ট দুটোকে ভালোভাবে লক্ষ্য করুন। দেখুন ফোলা, লালচে ভাব, নিপলের চারপাশের রঙের কোনো পরিবর্তন বা ত¦কের অস্বাভাবিকতা আছে কি না? নিখুতভাবে লক্ষ্য করার চেষ্টা করুন। সামনের দিকে, পাশের দিকে, হাত উপরে তুলে খেয়াল করুন। ডান হাতের আঙ্গুল দিয়ে বাম স্তন এবং বাম হাতের আঙ্গুল দিয়ে ডান স্তন পরীক্ষা করুন। ব্রেস্টের চারপাশে আঙ্গুল দিয়ে হালকা করে চাপ দিয়ে দেখুন কোনোরকম ব্যাথা, ফোলা, শক্ত চাকার মতো কিছু আছে কি না? এরকম কিছু অনুভব করলে দেরী না করে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। প্রাথমিক অবস্থায় ক্যান্সার আক্রান্ত টিউমারে কোনো ব্যাথার অনুভ’তি থাকেনা। তবে এ উপসর্গ থাকা সত্ত্বেও এটি ক্যান্সার নাও হতে পারে। হতে পারে একটি সাধারন টিউমার। স্তন ক্যান্সারের প্রাথমিক স্তর ধরা পড়ার প্রধান মাধ্যম হলো ম্যামোগ্রাফি। এটি অনেকটা ক্যামেরায় ছবি তোলার মতো ব্যাপার। এতে অত্যন্ত লো ফ্রিকোয়েন্সির এক্সরে দিয়ে স্তনের কোষ পরীক্ষা করা হয়। এর জন্য কোনও ইনজেকশন, কন্টাক মেটেরিয়াল দরকার হয় না। কোনও ব্যাথা বেদনাও অনুভুত হয় না। অভিজ্ঞ রেডিওলজিস্টের তত্ত্বাবধায়নে ম্যামোগ্রাফি করা ভালো। ম্যামোগ্রামের সময় দুটি প্লাস্টিক প্লেটের মধ্যে স্তন যুগলকে রেখে চাপ দিয়ে এ্যাডজাস্ট করে নিয়ে এক্সরে করা হয়।
যদি প্রাথমিক পর্যায়ে স্তন ক্যান্সার ধরা পড়ে অর্থাৎ শরীরের অন্য কোথাও ছড়িয়ে না পড়ে তাহলে প্রথমে অপারেশন করা হয়। পরে বায়োপসি করে প্রয়োজনে কেমোথেরাপি এবং রেডিওথেরাপি দেয়া হয়। আর রোগটি যদি ছড়িয়ে পড়ে তাহলে অপারেশন করা হয়না। তখন কেমোথেরাপির মাধ্যমে চিকিৎসা করা হয়। আর এক ধরনের ব্রেস্ট ক্যান্সার আছে যাকে বলা হয় লোকালি এ্যাডভান্সড ব্রেস্ট ক্যাšসার বা সংক্ষেপে এল এ বি সি সি। এ ক্যান্সারটি বেশ বড় আকারের। যদি অন্যত্র না ছড়ায় সে ক্ষেত্রে আগে কয়েকটি কেমোথেরাপি দিয়ে ছোট করে আনা হয় এবং তারপর অপারেশন করা হয়।

এবার আমরা ইতালির রোমে যারা রয়েছে তাদের কিছু ফ্রী নাম্বার দিয়ে দিচ্ছি যেখানে ফোন করে আপনারা সম্পূর্ণ ফ্রীতে এই ম্যা্েমাগ্রাম (Mammogram)   পরীক্ষাটি করিয়ে নিতে পারেন। এবং এই পরীক্ষা ইতালির অন্যান্য শহর ও ইউরোপের বিভিন্ন দেশেও সম্পূর্ণ ফ্রীতে করানো হয়। কাজেই যারা ইটালিতে রোমের বাইরে এবং যারা ইউরোপে রয়েছেন তারা আপনার নির্দিষ্ট স্বাস্থ্য সচেতন অফিসে গিয়ে বললেই তারা আপনাকে এর বিস্তারিত তথ্য দিয়ে দিবে।

যারা রোমে রয়েছেন তারা নিচের নাম্বারে ফোন করে পরীক্ষার দিন ধার্য করে নিতে পারবেন।

800.543.900 – (dal lunedì al venerdì ore 8.00 -17.30) এই নাম্বারে ফোন করে সরাসরি এপয়েন্টমেন্ট নিতে পারবেন।

800.018.972 – (dal lunedì al venerdì ore 8.00 -17.30) এই নাম্বারে ফোন করলেও তারা আপনার এলাকার নির্দিষ্ট নাম্বার জানিয়ে দিবে।


InstaForex *****লেখাটি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুণ!*****

সম্পর্কিত আরো কিছু পোস্ট দেখতে পারেন...

ইতালিতে বিনামুল্যে চিকিৎসা পাওয়ার কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য।
জেনে নিন ইতালির রাজধানী রোমে রাতের বেলায় যে যে ফার্মাসি গুলো খোলা থাকে
গুরুত্বপূর্ণ পোস্ট। ইতালির হসপিটাল গুলোর জরুরী বিভাগ কিভাবে কাজ করে? জেনে নিন বিস্তারিত।
সুখবর!! ইতালিতে অবৈধরাও পাবে সম্পূর্ণ ফ্রী দাঁতের চিকিৎসা
নারীর জরায়ু ক্যান্সার বাঁ পাপ টেস্ট সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য এবং কিভাবে ইতালি ও ইউরোপে এটা ফ্রী করাবে...
অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটি লেখা!! ইতালিতে এবরোশন-গর্ভপাত করানো কিন্তু সহজ নয়? যদি করাতেই হয় তাহলে কিভাবে...

সম্পর্কিত আরো কিছু পোস্ট দেখতে পারেন...

এই লেখাটি লিখেছেন...

– সে এই পর্যন্ত 17 টি পোস্ট লিখেছেন এই সাইট এর জন্য আমিওপারি ডট কম.

লেখকের সাথে যোগাযোগ করুন !

আপনার মন্তব্য লিখুন

{ 0 comments… add one now }

Leave a Comment