ইউরোপে পড়াশুনা আর দেশ বেধে কিছু ভিন্নতা গুরুত্ত পূর্ণ কিছু তথ্য যা হয়তো আপনার জানা নেই?

by Lesar on আগস্ট ২১, ২০১৫পোস্ট টি ৩,৫৫৪ বার পড়া হয়েছে in ইউরোপ ও আন্নান দেশে উচ্চ শিক্ষা

যুবরাজ শাহাদাতঃ ইউরোপের সকল দেশের পড়াশুনা ও আবেদনের নিয়ম কাননের ক্ষেত্রে কিছুটা ভিন্নতা রয়েছে। ইন্টারন্যাশনাল স্টুডেন্টসদের পছন্দের তালিকায় যে সকল দেশের নাম প্রথমে রয়েছে!! সেগুলো হল – ইউকে, আয়ারল্যান্ড, জার্মান, নরওয়ে, ডেনমার্ক, সুইডেন, ফিনল্যান্ড, হল্যান্ড, বেলজিয়াম ও ইতালি। এই গুলোর সব কয়টি ই ধনী দেশের তালিকা, জার কারনে বাহিরের দেশ থেকে আসা ছাত্রদের প্রথম পছন্দ থাকে এই দেশ গুলো। পরাশুনার পাশাপাশি ভালো জবের ব্যবস্থা ধনী দেশ গুলো চয়েজ করার প্রধান কারন। দেশ থেকে ইউরোপে আসতে প্রাথমিক যে জিনিস গুলো নিয়ে মাথা ঘামায় ছেলেমেয়েরা সেগুলো হল ব্যাংক ব্যাল্যান্স এর সমস্যা, এমব্যাসি না থাকা আরেক দেশের এমব্যাসির দ্বারস্থ হওয়া, ওই দেশের গেলে পি আর বা সেটেলমেন্ট এর কোন ব্যবস্থা হবে না কি? জবের অবস্থা কি বেশি খারাপ না কি? ইত্যাদি ইত্যাদি।

এখন সংক্ষেপে কোন দেশের ক্ষেত্রে কি কি ভিন্নতা আছে প্রসেসিং এর ক্ষেত্রে তা ২/১ লাইনে ব্যাখ্যা করব।

1# নরওয়ে এর ক্ষেত্রে আপনাকে প্রাথমিক ডকুমেন্টস সাবমিশনের সময় (অনলাইন/এক্সপ্রেস সার্ভিস ) এখন থেকে ব্যাংক স্টেইটমেন্টের কপি সেন্ড করতে হবে ( নতুন নিয়মে , আগে শুধুমাত্র ভিসা অ্যাপ্লিকেশান এমব্যাসিতে করার পূর্বে সেটা করতে হত ) ভিসার আবেদন জমা নেয়ার কাজ সুইডিশ এমব্যাসি ঢাকা করে থাকে।

২# ফিনল্যান্ড এর ক্ষেত্রে ব্যাচেলর আবেদন করতে চাইলে আগে এন্ট্রান্স এক্সাম দেয়া লাগত নেপাল গিয়ে কিন্তু গত ২ বছর যাবত সেটা বাংলাদেশীদের জন্য বন্ধ আছে। কেউ চাইলে ফিনিশ ভিসা নিয়ে ফিনল্যান্ড গিয়ে এক্সাম দিতে পারবে কিন্তু বাংলাদেশ থেকে সেটা সম্বব না। এমব্যাসি এর যাবতীয় কাজের জন্য দৌড়াতে হয় নিউ দিল্লি, ইন্ডিয়াতে।

৩# জার্মানিতে আসতে চাইলে আপনাকে ব্লক অ্যাকাউন্ট এ ৮০৪০ ইউরো জার্মান ব্যাঙ্কে ব্লক করতে হবে। কিছু দিন আগেও সেই ব্লক অ্যাকাউন্ট নিজ দেশীয় ব্যাঙ্কে করা সম্বভ ছিল!! কিন্তু এখন থেকে সেটা জার্মানিতে করতে হবে ভিসা আবেদনের পূর্বে।

৪#  অষ্ট্রিয়ার ব্যাপারে ডকুমেন্টস সত্যায়িত করতে হয় অষ্ট্রিয়ান এমব্যাসি অথবা কনস্যুলেট থেকে। আর ডকুমেন্টস সত্তায়ন করতে প্রতি কপি তারা ৩০ ইউরো এর সমপরিমান দেশীয় পয়সায় চার্জ করে। আর এমব্যাসি বাংলাদেশে না থাকার কারনে দৌড়াতে হয় ইন্ডিয়াতে।

৫# ডেনমার্ক, সুইডেন, হল্যান্ড ভিসা আবেদনের ক্ষেত্রে কোন ঝামেলা না থাকলেও ওই সব দেশে বর্তমানে উচ্চ টিউশন ফী আরোপের ফলে স্কলারশিপ ছাড়া নিজ খরচে পড়াশুনা চালিয়ে যাওয়া অনেকটা কষ্ট সাধ্য।

বিঃদ্র – কোন দেশের ইমিগ্রেশন সংক্রান্ত, আইন কানুন, ভিসা আবেদনের নিয়মে কোন পরিবর্তন আসলে কেউ জানলে সেটা সবার মঙ্গলার্থে আমিওপারির মাধ্যমে সবার সাথে শেয়ার করতে পারেন, এতে করে আপনার জানা বিষয় গুলো ১০ জনে জেনে উপকৃত হবে। ধন্যবাদ।

আর যারা আপনাদের ফেসবুকে আমাদের সাইটের প্রতিটি লেখা পেতে চান তারা এখানে ক্লিক করে আমাদের অফিশিয়াল ফেসবুক পেজে গিয়ে লাইক দিয়ে রাখতে পারেন। তাহলে আমিওপারিতে প্রকাশিত প্রতিটি লেখা আপনার ফেসবুক নিউজ ফিডে পেয়ে যাবেন। ধন্যবাদ।

InstaForex *****লেখাটি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুণ!*****

সম্পর্কিত আরো কিছু পোস্ট দেখতে পারেন...

অস্ট্রেলিয়ায় স্টুডেন্ট ভিসা আবেদন পদ্ধতি..
জেনে নিন কোন দেশে কত টাকার ব্যাঙ্ক স্টেটমেন্টস লাগবে ইউরোপে যেতে আথবা পড়াশুনা করতে ??
ফিনল্যান্ডে আসার আগে যে কাজগুলো অবশ্যই করা উচিৎ!!!!!!
কেমন আছেন সাইপ্রাসে বাংলাদেশী শিক্ষার্থীরা?
বেলজিয়াম সরকার প্রদত্ত বৃত্তি - VLIR-UOS Scholarshin in Belgium
ইউরোপে উচ্চ শিক্ষার ক্ষেত্রে কোথায় কিভাবে আপনার সনদপত্র সত্যায়িত করবেন?

এই লেখাটি লিখেছেন...

– সে এই পর্যন্ত 1180 টি পোস্ট লিখেছেন এই সাইট এর জন্য আমিওপারি ডট কম.

আমিওপারি নিয়ে আপনাদের সেবায় নিয়োজিত একজন সাধারণ মানুষ। যদি কোন বিশেষ প্রয়োজন হয় তাহলে আমাকে ফেসবুকে পাবেন এই লিঙ্কে https://www.facebook.com/lesar.hm

লেখকের সাথে যোগাযোগ করুন !

আপনার মন্তব্য লিখুন

{ 1 comment… read it below or add one }

ashraful আগস্ট ২৯, ২০১৫ at ৯:৫৭ পুর্বাহ্ন

onek onek dhonno bad

Reply

Leave a Comment