বাংলাদেশে জমি কিনতে হলে যা যা জানতে হবে!!

by adilzaman on মে ২৮, ২০১৩পোস্ট টি ১,৮২৫ বার পড়া হয়েছে in শিক্ষা মূলক

জীবনে বার বার কিংবা অসংখ্যবার কেউ জমি কেনেন না। আবার যদি কেউ কিনে থাকেন তবে সেটা ব্যতিক্রম। তাই জমি কেনার সময় কয়েকটি ব্যাপারে ক্রেতাদের সজাগ থাকতে হয়। নইলে পরবর্তীকালে ঝামেলায় জড়িয়ে পড়তে হয়। জমি সম্পর্কিত কিছু বিষয় জানা থাকলে পরবর্তীতে নানান ঝামেলা থেকে রেহাই পাওয়া যাবে।

কিছু গুরুত্বপূর্ণ কাগজ অবশ্যই যাচাই করতে হবে আর তা হল-
সিএস খতিয়ানের সার্টিফায়েড কপি, এসএ খতিয়ানের সার্টিফায়েড কপি, আরএস খতিয়ানের সার্টিফায়েড কপি, আরএস মিউটেশনের সার্টিফায়েড কপি, মূল দলিল, বায়া দলিল/পিঠ দলিল, খাজনা হালনাগাদ, দায়মুক্তি সনদ, আপস বণ্টননামা, মহানগর মাপ জরিপ (গ্রামে ইউনিয়ন মাপ জরিপ)। এছাড়া,

* জমির আইনি সমস্যা আছে কিনা সেটাই আগে দেখতে হবে। আবার তা দেখতে হলে আপনাকে বেশ কিছু বিষয়ের প্রতি খেয়াল রাখতে হবে। যেমন জমিটি এখন যার তিনি তা কোন সুত্রে পেয়েছন, আর কোন দাবিদার আছে কিনা, ইত্যাদি।

* ক্রেতা যার থেকে কিনছে সে ওই জমিটা বিক্রি করতে পারবে কিনা? সেরকম হলে উকিলের পরামর্শ নিতে হবে, রেজিস্ট্রি করার আগে দেখে নিতে হবে জমিটা এক না অংশীদারি মালিকানার অন্তর্গত।

*জমি রেজিস্ট্রেসনের সময় ভুললে চলবে না যে জমিটা কেনা হচ্ছে সেটা কোন বড় সমিতি, বড় কন্সট্রাকশন, বা সরকারি জমির আওতার অন্তর্গত কি না? সেটা মুচলেকাতে লিখিয়ে নিতে হবে।

* জমির টাকা হস্তান্তর করার আগে দেখে নিতে হবে জমিটার মালিক জমির সমস্ত ট্যাক্স, ও অন্যান্য বিল মিটিয়েছে কিনা। সরকারি দপ্তর বা মিনিউসিপালিটিতে খোঁজ নিয়ে তা জেনে নিতে হবে।

* অনেক সময় দেখা যায়, জমির মালিক জমিটা মরডগেজ দিয়ে লোন নিয়েছে। কাজেই জমি রেজিস্ট্রেসনের আগে এটাও দেখার বিষয় যে জমির মালিকের লোনের টাকা পরিশোধ হয়েছে কিনা?

* জমি রেজিস্ট্রেসনের আগে দেখে নিতে হবে যে, যে পরিমাণ জমির টাকা দেওয়া হচ্ছে সেই পরিমাপের জমি ক্রেতা পাচ্ছে কিনা? দরকার হলে জমিটি সরকারি কর্মচারী দিয়ে মেপে নিতে হবে ।

* আগের সমস্ত অর্থনৈতিক ও আইনি নথি ঠিক থাকলে, একটা চুক্তিনামা করিয়ে নিতে হবে, যাতে ওই জমির মালিক পরে জমির দাম বৃদ্ধি, বা অন্য কোন ক্রেতাকে বেশি মূল্যে জমিটি বিক্রি না করতে পারে ।

* একটি ৫০ টাকার সরকারি চুক্তিপত্র কিনে তাতে জমিটির মূল্য, আগাম দেওয়া টাকার পরিমান, সময় সবকিছু লিখে নিতে হবে, যাতে কোন পক্ষই আইনি জটিলাতায় না পরে । খুব ভাল হয় যদি এই কাজটি করার সময় দু’পক্ষের উকিল ও দু’জন সাক্ষী থাকে। পাকেচক্রে কোন পক্ষ সমস্যার সম্মুখীন হলে যাতে অপর পক্ষের বিরূদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া যায় । রেজিস্ট্রি হল জমির হস্তান্তারের দুপক্ষেরই প্রমাণ পত্র ।

[[ আপনি জানেন কি? আমাদের সাইটে আপনিও পারবেন আপনার নিজের লেখা জমা দেওয়ার মাধ্যমে আপনার বা আপনার এলাকার খবর তুলে ধরতে জানতেএখানে ক্লিক করুণতুলে ধরুন  নিজে জানুন এবং অন্যকে জানান ]]

InstaForex *****লেখাটি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুণ!*****

সম্পর্কিত আরো কিছু পোস্ট দেখতে পারেন...

জমি কেনার আগেঃ জাল দলিল চিনবেন যেভাবে!!
চেক সম্পর্কে বিস্তারিত এবং চেক ডিজঅনার হলে করনীয়
রক্তদান নিয়ে কিছু প্রশ্ন এবং উত্তর, বিষয় গুলো নিজে জানুন অন্যকে জানান। বাঁচান একটি জীবন!!
প্রবাসীদের জন্য অবশ্যই পড়ুন!! দেশে ফ্ল্যাট কেনার আগে যে বিষয় গুলি অবশ্যই যাচাই করে নিবেন?
দেশে ড্রাইভিং লাইসেন্স করবেন কিভাবে? ধাপসমূহ!
আসুন জেনে নেই কোর্ট ম্যারেজ কি?

এই লেখাটি লিখেছেন...

– সে এই পর্যন্ত 154 টি পোস্ট লিখেছেন এই সাইট এর জন্য আমিওপারি ডট কম.

লেখকের সাথে যোগাযোগ করুন !

আপনার মন্তব্য লিখুন

{ 0 comments… add one now }

Leave a Comment