মার্কিন নাগরিক হওয়ার সুযোগ পাচ্ছে কয়েক লক্ষ অভিবাসী

by NAJMUL HUSSAIN on জুন ২৯, ২০১৩পোস্ট টি ২২০ বার পড়া হয়েছে in আন্তর্জাতিক সংবাদ

নাজমুল হোসেন……………

ভেঙ্গে পড়া ইমিগ্রেশন ব্যবস্থা সংস্কারে ইমিগ্রেশন রিফর্ম বিল বৃহস্পতিবার পাশ করেছে যুক্তরাষ্ট্র সিনেট। এর মধ্য দিয়ে বহু জাতির দেশটিতে লাখ লাখ অবৈধর বৈধতার পথ সুগম হলো। যা তাদের একসময় নিয়ে যাবে স্বপ্নের এই দেশের অনিবার্য্য নাগরিত্বের পথে। সিনেটে ৬৮-৩২ ভোটে পাশ হলো এই বিল। তবে সিনেটররা সীমান্তে নিরাপত্তায় কঠোর হতেই ওবামা প্রশাসনকে পরামর্শ দিয়েছেন।

সূত্র জানিয়েছে, মোট ১৪ জন রিপাবলিকান সিনেটর ডেমোক্রেটদেরকে সমর্থন করে বিলটি পাশ করেছে। বিলটি আইন হিসেবে পাশের জন্য পাঠাতে সিনেটে এই সর্বশেষ প্রক্রিয়ায় প্রয়োজন ছিল ৬০ ভোট। প্রয়োজনের চেয়েও ৮টি ভোট বেশি পড়েছে এই বিলের পক্ষে। বিপক্ষে পড়েছে ৩২ ভোট। অবশ্য বিলটি প্রেসিডেন্টের টেবিল থেকে জয়ের মুখ দেখতে এখনও অনেক বন্ধুর পথ অতিক্রম করতে হবে। ডেমোক্রেট ও রিপাবরিকান দলীয় সিনেটরদের এই ‘সমন্বিত ইমিগ্রেশন রিফর্ম বিল’ হলেও রিপাবলিকান নিয়ন্ত্রিত হাউজে বিলটি পাশে অনেক ভোটের লড়াইয়ে অনেক বাধা বিপত্তির সম্মুখীন হতে হবে এই বিল উত্থাপনকারীদেরকে। কারণ কাগজপত্রহীনদের নাগরিকত্বের বিরোধী নীতিমালার পক্ষের শক্তিটিও অনেক শক্তিশালী।

হাউজ স্পিকার জন এ বোহনার সীমান্ত সুরক্ষাও আইন প্রয়োগকে গুরুত্ব দিয়ে আরো ছোট আকারে ইমিগ্রেশন আইন হাউজে আনার পরামর্শ দিয়ে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, অন্য কোন বিল হাউজে ভোটের জন্য দেবেন না। হাউজ স্পিকার জন এ বোহনার তার সহযোগীদের কাছে ব্যক্তিগত আলাপচারিতায় বলেছেন, সংখ্যাগরিষ্ঠ রিপাবলিকানদের সমর্থন নেই, এমন ইমিগ্রেশন সংস্কার বিলের ওপর হাউজ ভোট দেবেনা। এবং তিনি এও বলেছেন প্রয়োজনে তিনি সিনেটে পাশ হওয়া এবং হাউজের বিল দুটিকেই মিশিয়ে একত্রিত করবেন।

উল্লেখ্য, ২০০৬ সালের ইমিগ্রেশন রিফর্ম বিলেরই আধুনিক সংস্করণ এই বিল সিনেট আজ পাশ করেছে যা, ‘সমন্বিত ইমিগ্রেশন রিফর্ম বিল’ উচ্চ কক্ষে পাশ হলেও তখন হোয়াইট হাউজের সমর্থনের অভাবে থমকে গিয়েছিল। ২০০৭ সালে বিলটি পাশের জন্য প্রয়োজন ৬০ ভোটের চেয়ে অনেক পিছিয়ে ছিল। বর্তমান বিলটি মূলত কোন বড় ধরনের পরিবর্তন ছাড়া আগের সেই বিলটিরই খানিকটা বেশি গ্রহণযোগ্য সংস্করণ যা ‘গ্যাং অব এইটস’ নামে খ্যাত ডেমোক্রেট ও রিপাবরিকান দলীয় সিনেটরদের উত্থাপিত একটি বিল। এর পেছনে ব্যবসায়ী, শ্রমিক সংগঠনও বিভিন্ন অভিবাসী অধিকার সংরক্ষণ সংগঠনেরও সমর্থন রয়েছে। আর এ কারনেই বিলটি এতদুর অগ্রসর হতে পেরেছে।

দীর্ঘ একমাস বিতর্কের পর যুক্তরাষ্ট্র-মেক্সিকো সীমান্তে আইন প্রয়োগে বিশাল অংকের তহবিল নিশ্চিত, টহল প্রহরীদেও সংখ্যা দ্বিগুন করা ও ৭০০ মাইল সীমান্ত বেড়া দেয়ার শর্তের সংযুক্তির মধ্য দিয়ে অবশেষে বিলটি পাশ হলো। চেনেসির রিপাবলিকান সিনেটর বব কোরকার এই শর্তের মধ্যস্থতায় আরো রিপাবলিকান সিনেটরদেরকে বিলের পক্ষে আনার দায়িত্বে ছিলেন। সীমান্ত কড়াকড়ির পক্ষে রিপাবলিকান সিনেটর কোরকার ও সাউথ ডাকোটার সিনেটর হোয়েভেন খসড়াটি তৈরি করেছিলেন। তারা বলেন, কাগজপত্রহীনদের গ্রীণকার্ডের আবেদনের যোগ্যতা অর্জনের পূর্বে সীমান্ত সুরক্ষায় নির্ধারিত লক্ষ্য অর্জনের কোন নিশ্চয়তা নেই। উল্লেখ্য, সিনেট সংখ্যাগরিষ্ঠ দলের নেতা হ্যারি রীড ধারণা দিয়েছিলেন ৪ জুলাইয়ের সিনেট ছুটির আগেই সিনেট বিলটির বিষয়ে চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে পারবে।

[[ আপনি জানেন কি? আমাদের সাইটে আপনিও পারবেন আপনার নিজের লেখা জমা দেওয়ার মাধ্যমে আপনার বা আপনার এলাকার খবর তুলে ধরতে জানতেএখানে ক্লিক করুণতুলে ধরুন  নিজে জানুন এবং অন্যকে জানান ]]

InstaForex *****লেখাটি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুণ!*****

সম্পর্কিত আরো কিছু পোস্ট দেখতে পারেন...

সিঙ্গাপুরে অঘটন ঘটিয়ে দিলো ভারতের মানুষ
আমিরাতে তুচ্ছ ঘটনার জের ধরে সংঘর্ষ,২ বাংলাদেশি নিহত, আহত ৫ জন
বাংলাদেশ কনস্যুলেট নিউ ইয়র্ক এ স্বাধীনতা দিবস পালন।
মেক্সিকোতে পরিচিতি পাচ্ছে বাংলাদেশ, আছে সহনীয় ইমিগ্রেশন আইন!
বাংলাদেশকেই উদ্যোগ নিতে হবে নিউজিল্যান্ডের সাথে সম্পর্কোন্নয়নে
কোরিয়ান টেকনোলজিকে যেসব সেক্টরে কাজে লাগাতে চায় বাংলাদেশ

এই লেখাটি লিখেছেন...

– সে এই পর্যন্ত 35 টি পোস্ট লিখেছেন এই সাইট এর জন্য আমিওপারি ডট কম.

আমি ইতালির মিলান এনটিভি প্রতিনিধি হিসাবে কাজ করছি | পাশাপাশি বর্তমানে পাঠকদের জনপ্রিয় অনলাইন কিছু পত্রিকার সাথে টুক টাক লেখা লেখির চেষ্টা করি | সাংবাদিকতা আমার পেশা না,তবে সংবাদ সংগ্রহ করে পাঠকদের কাছে তুলে ধরতে চেষ্টা করি লেখালেখির মাধ্যমে |চেষ্টা করবো প্রবাসের কমিউনিটির কথা গুলো পত্রিকায় প্রকাশ করতে |

লেখকের সাথে যোগাযোগ করুন !

আপনার মন্তব্য লিখুন

{ 0 comments… add one now }

Leave a Comment