ইতালি আসতে ইচ্ছুকদের জন্য প্রয়োজনীয় কিছু তথ্য

by adilzaman on অক্টোবর ২৫, ২০১২পোস্ট টি ৯৬১ বার পড়া হয়েছে in জীবনী

আমাদের দেশের অনেকেরই ইচ্ছে ইউরোপ এ এসে চাকুরি করা। বিশেষ করে ইতালি আসতে অনেকেই ইচ্ছুক। তো সেই সব ইচ্ছুক ভাইদের জন্য কিছু তথ্য যা জানানো প্রয়োজন মনে করছি। প্রথমত যারাই ইতালি আসতে ইচ্ছুক তাদের একটা কথা আমি জানিয়ে রাখতে চাই যে, সাম্প্রতিক বিশ্বমন্দার প্রভাব ইতালির উপরও পড়েছে, শুধু পড়েছে বললে ভুল হবে, খুব ভালোভাবেই পড়েছে। যার কারনে এখানকার চাকুরির ক্ষেত্রটা খুব বেশি ভালো অবস্থানে নেই। এমনকি যারা এখানকার স্থায়ী নাগরিক মানে যারা ইতালিয়ান তাদেরই আজ অনেকের কাজ নেই। সেই কারনে এখানকার নাগরিকরাও পছন্দ করছেনা অন্যকোন দেশ থেকে লোকজন এসে স্থানীয়দের কাজের ক্ষেত্রটা নষ্ট করুক। কিন্তু যারা একবার মনস্থির করে ফেলেছেন ইতালিতে আসার তাদের মন হয়তো কিছুতেই মানতে চাইবে না এই অবস্থা। যাই হোক এখন বাকী প্রসঙ্গে আসি। ইতালি আসতে দালালচক্র থেকে সাবধান!!! কারন এরা লোভনীয় চাকুরির কথা বলে অনেকের কাছ থেকে হাতিয়ে নিচ্ছে লক্ষ লক্ষ টাকা এবং অনেকেই নিঃস্ব হচ্ছেন এই দালালচক্রের হাতে পড়ে।

কেউ যদি বলে আপনাকে যে, আপনি ইতালি আসলে আপনার চাকুরি নিশ্চিত.. এটা একটা ডাহা মিথ্যা ছাড়া কিছুই না। কারন এখানে একমাত্র হাই স্কিল্ড প্রফেশনালদেরই চাকুরি নিশ্চিত করে এখানে আনা হয় এবং তা করে সরাসরি কোম্পানী। কোন ব্যাক্তি বা দালালদের মাধ্যমে তা করে না কোন কোম্পানী। যদি কেই স্পন্সর ভিসাতে আসতে পারেন সেটা হবে সবচেয়ে উত্তম পদ্ধতি কারন স্পন্সর ভিসাতে আসলে আপনি সেই ভিসা নবায়ন করে এখানে অবস্থান করতে এবং কাজ করতে পারবেন যদিও নিশ্চিত করে বলা যায় না যে আদৌ আপনি কাজ পাবেন কিনা বা পেলে কবে পেতে পারেন। কিন্তু স্পন্সর ভিসা পাওয়া এখন খুবই দুস্কর। কারন এখানকার সরকার স্পন্সর ভিসাতে লোক আনার সুযোগটা খুবই কম দেয়। এখন বেশিরভাগ লোকজনই ইতালিতে আসতেছেন কৃষি কাজের ভিসাতে অথবা ভিজিট ভিসাতে। যার মেয়াদ বেশি হলে ছয় মাস এবং আপনি যদি এই ভিসাতে ইতালিতে আসেন তা হলে এই ভিসার মেয়াদ শেষ হয়ে গেলে আইনত আপনাকে দেশে ফিরে আসতে হবে। কারন এই ভিসা নবায়নযোগ্য নয়। যদি আপনি চান যে আপনি অবৈধভাবে এখানে অবস্থান করবেন সেটাও সম্ভব। কারন এই দেশের সরকার কখনোই আপনার ইচ্ছের বিরুদ্ধে আপনাকে দেশে ফেরত পাঠাবে না। একমাত্র কোন প্রকার অপরাধমূলক কাজে জড়িত হলে এবং তা যদি এখানকার আইন প্রয়োগকারী সংস্থার দৃষ্টিগোচর হয় তা হলে তারা আপনাকে নিশ্চিত দেশে ফেরত পাঠাবে। আর একবার যদি তারা আপনাকে দেশে ফেরত পাঠায় …. আপনি আর কখনোই বৈধভাবে ইউরোপ এ ঢুকতে পারবেন না। তার কারন যখন তারা আপনাকে ফেরত পাঠাবে তখন তারা আপনার হাতের ছাপ, আপনার যাবতীয় সব তথ্য ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত সব দেশের কাছে পাঠিয়ে দেয় যাতে ভবিষ্যতে আপনি কোন ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত দেশের ভিসার আবেদন করলে তা বাতিল হয়ে যায়। এখানে একবার অবৈধ হয়ে গেলে অনেক সমস্যা যেমন অবৈধ লোকদের কাজ পাওয়া খুবই মুসকিল এবং অবৈধ লোকদের কেউ কাজও দিতে ভয় পায় কারন কেউ যদি জেনেশুনে অবৈধ কাউকে কাজ দেয এবং তা আইন প্রয়োগকারী সংস্থার হাতে পড়ে তাহলে সেই মালিককে বিশাল একটা জরিমানা গুনতে হয। মাঝে মধ্যেই হয়তো আপনাকে এখানকার আইন প্রয়োগকারী সংস্থার হাতে পড়ে থানায় যেতে হতে পারে যদি আপনি অবৈধ হন। থানায় আপনার হাতের ছাপ রেখে তারপর হয়তো ছেড়ে দিবে আবার ক্ষেত্র বিশেষে এক থেকে দুই দিন অবস্থান করতে হতে পারে। আবার এখানে বৈধ হওয়ার সুযোগ দেয়া কিন্তু সেটা ৪ থেকে ৫ বছর পরপর কিন্তু নিশ্চিত নয় এটা নির্ভর করে এদেশে সরকারের উপর। আর অবৈধ হলে আপনি দেশেও যেতে পারবেন না ইচ্ছেমত যতদিন না আপনি বৈধ হতে পারেন যার কোন নিশ্চয়তা নেই।

অনেকেই হয়তো স্বপ্ন দেখছেন যে ইতালি আসতে পারলেই লক্ষ লক্ষ টাকা রোজগার করতে পারবেন..কিন্তু এখনকার বাস্তব চিত্র ভিন্ন….মানে গুড়ে বালি। অনেকেই ১২ থেকে ১৩ লক্ষ টাকা খরচ করে ইতালি আসতেছেন এবং এসে শুধুই চোখের পানি ফেলছেন যা ঘটছে অহরহ। তাই সবাইকে আমার একটাই অনুরোধ যে টাকাগুলো দিয়ে আপনি ইতালি আসবেন বলে মনস্থির করেছেন সেই টাকাগুলো ইতালি এসে নষ্ট না করে দেশেই কিছু করুন। এতে দেশেরও উন্নতি হবে সাথে সাথে আপনারও। আশা করি তথ্যগুলো আপনাদের কাজে আসবে। ধন্যবাদ সবাইকে।

 [[ আপনি জানেন কি? আমাদের সাইটে আপনিও পারবেন আপনার নিজের লেখা জমা দেওয়ার মাধ্যমে আপনার বা আপনার এলাকার খবর তুলে ধরতে জানতে “এখানে ক্লিক করুণ” তুলে ধরুন  নিজে জানুন এবং অন্যকে জানান। ]]

InstaForex *****লেখাটি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুণ!*****

সম্পর্কিত আরো কিছু পোস্ট দেখতে পারেন...

প্রবাসীদের বলছি সাবধান,কেউ অপরিচিতদের থেকে মোবাইল কিনবেন না!!
সতর্ক বার্তা-এপোলো হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসার আগে দয়া করে একটু ভেবেচিন্তে আসবেন?
ইতালির বোলজানো থেকে জাহাঙ্গীর আলম সিকদার, হবে হবে কবে হবে ? কথায় না বড় হয়ে কাজে বড় হবে।
মায়ের পেটের বোনের কাছে স্বামীকে ভিক্ষা চেয়েছিলেন বড় বোন রিপা।
সুইজারল্যান্ড থেকে এক বাংলাদেশী প্রবাসী তার সুইস বন্ধুকে নিয়ে বেড়াতে আসে... তারপর????
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র যখন রিকশা চালক (গর্বিত শিক্ষার্থী)

এই লেখাটি লিখেছেন...

– সে এই পর্যন্ত 154 টি পোস্ট লিখেছেন এই সাইট এর জন্য আমিওপারি ডট কম.

লেখকের সাথে যোগাযোগ করুন !

আপনার মন্তব্য লিখুন

{ 3 comments… read them below or add one }

Asad অক্টোবর ২৬, ২০১২ at ৬:৪৫ অপরাহ্ণ

ভাই আপনার লেখাটা খুব ভালো লাগলো

Reply

abdullah al mamun ডিসেম্বর ২০, ২০১২ at ৪:২৮ পুর্বাহ্ন

আমি এ মাসে ট্যাক্স এর ১৫০০০০ টাকা জমা দিলাম এগ্রিকালচার ভিসার জন্য. কেউ কোনো ডিটেল এ একটু জানালে উপকৃত হতাম.

Reply

It Solution Bangladesh ডিসেম্বর ২১, ২০১২ at ৮:১৭ অপরাহ্ণ

থাঙ্কস ফর থিস পোস্ট

Reply

Leave a Comment